GT Bible Studies    

    Bangla    


Navigation Glad Tidings Bible Studies

৬. যখন দুঃখজনক ঘটনা ঘটে (৫ঃ২১-২৪, এবং ৩৫-৪৩)


পটভূমি ঃ ইহুদিদের মজলিশখানার নেতা হিসাবে শহরের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গরাই নির্বাচিত হত। শুধুমাত্র যায়ীর ছাড়া সমস্ত সুখবরে মজলিশখানার যে সমস্ত নেতাদের কথা উল্লেখ করা হয়েছে তারা ঈসা মশীহের বিপক্ষ ছিলেন। যায়ীরের শুধুমাত্র একটি সন্তান ছিল। (লূক ৮ঃ৪২)

১. অনেক দিন অপেক্ষা করার পর সন্তান এসেছে এমন একটি পরিবারের প্রতিদিনের কথা চিন্তা করুন।
২. যখন একটি সন্তান অসুস্থ হয়ে পড়ে তখন পরিবারের অভিভাবকের অবস্থা কেমন হতে পারে? এর বিভিন্ন সম্ভাবনাগুলির কথা চিন্তা করুন।
  • যায়ীরের মেয়েটি যখন অসুস্থ হয়েছিল তখন আল্লাহ সাথে যায়ীরের সম্পর্ক কেমন ছিল বলে আপনার মনে হয় ?
    ৩. যায়ীর কেন এমন একজন লোকের কাছে সাহায্য চাইলেন যে তার নিজের স্থানে যেখানে সে চলাফেরা করছিল সেখানে জনপ্রিয় ছিল না ?
  • যায়ীর ঈসা মশীহের কাছে যে ভাবে সাহায্য চাইলেন তা থেকে আমরা যায়ীর সম্বন্ধে কি শিক্ষালাভ করতে পারি ? (২২-২৩)
    ৪. একজন বাবা যখন তার ঘর থেকে কোন খারাপ সংবাদ শুনতে পায় তখন সেই বাবার মনের অবস্থা কি রকম হয় ?
  • আপনার কি কখনও এমন মনে হয়েছিল যে আপনি ঈসাকে কোনভাবে বিরক্ত করবেন না? কখন আপনার এমনটি ঘটেছিল ?
    ৫. কেন ঈসা মশীহ যায়ীরকে ভয় না পেতে বললেন যদিও তার জীবনে একটি দুঃখজনক ঘটনা ঘটতে যাচ্ছিল (৩৬) ?
  • এই দুনিয়াতে আপনি সবচেয়ে কি বেশী ভয় পান ? (আপনি আপনার হৃদয় থেকে উত্তর দিতে পারেন)।
  • যখন আপনার জীবনে কোন দুঃখজনক ঘটনা ঘটে গেছে সে মূহুর্তে যদি ঈসা মশীহ আপনাকে বলেন ভয় কোরো না, তখন আপনার প্রতিক্রিয়া কি হবে ?
    ৬. ঈসা মশীহ আজকে আপনাকে বলছেন ' ভয় কোরো না, কেবল বিশ্বাস কর'। আপনার বর্তমান পরিস্থিতিতে এই কথাগুলো কি অর্থ বহন করে ?
  • যদিও মেয়েটি মারা গিয়েছিল তবুও যায়ীর কি বিশ্বাস করেছিল ?
  • যদি যায়ীর ঈসা মশীহের উপর ঈমান না রাখতো তাহলে সে কি করতো ?
    ৭. যায়ীরের স্ত্রী দেখেছিল যে তার স্বামী যখন চলে গেছে তখন তার সন্তানটিও মারা গেছে। আপনি কি মনে করেন যখন ঈসা মশীহ এবং স্বামী তাদের বাসায় ফিরে এসেছিল তখন তার মানসিক অবস্থা কেমন ছিল ?
  • যখন ঈসা মশীহ যায়ীরের বাড়ীতে পৌঁছালেন তখন মেয়েটিকে সমাধিস্থ করার সব প্রস্তুতিই চলছিল। ৩৯ আয়াতের মধ্য দিয়ে ঈসা মশীহ সেখানে উপস্থিত আত্মীয় পরিজনদেরকে কি বলতে চেয়েছিলেন ?
    ৮. কিভাবে ঈসা মশীহ মেয়েটিকে মৃত থেকে জীবিত করলেন তা ভালভাবে পড়ুন (৪১-৪৩)। বিশেষভাবে কোন বিষয়টি আপনার কাছে সবচেয়ে কৌতুহলপূর্ণ ?
    ৯. কেন ঈসা মশীহ তাঁর এই কেরামতী কাজ সম্বন্ধে অন্যদের কাছে বলতে কড়াকাড়িভাবে নিষেধ করলেন, যদিও এটি তাঁর পরিচর্যা কাজের জন্য একটি ভাল দিক ছিল ?
    ১০. এই ঘটনাটি সেই মেয়েটির জীবনে কি প্রভাব ফেলেছিল ? কিভাবে এটি তার ভবিষ্যত জীবনকেও প্রভাবিত করেছিল ?
  • এই ঘটনার পরে মেয়েটির পিতামাতার জীবন কিভাবে পরিবর্তিত হয়েছিল ?
  • পরবতর্ীতে এই পরিবারটি যখন ঈসা মশীহের মৃত্যু থেকে পুনরুত্থিত হবার গুজব শুনেছিল তখন তারা কি চিন্তা করেছিল ?

    সুখবর : 'ভয় কোরো না, কেবল বিশ্বাস করো' ঈসা মশীহের মুখ থেকে এই কথা শোনার অর্থ হচ্ছে যে ' এই জিনিষটি আমার কাছে দাও, আমি এর যত্ম নেব।' ঈসা মশীহ শুধু একটি বিষয়েই ভীত হয়েছিলেন, তাঁর বেহেস্তী পিতার কাছ থেকে পৃথক হওয়া। গেৎশীমানী বাগানে যখন তাঁর ঘাম রক্তে পরিণত হয়েছিল তখন তিনি খুবই ভয় পেয়েছিলেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি আমাদের দেখিয়েছেন যে আল্লাহর কাছ থেকে পৃথক হওয়া (এটি হল : দোজখ) হল এমন একটি বিষয় যে বিষয়ে আমাদের ভয় পাওয়া উচিৎ। যারা তাঁর উপর ঈমান আনে তাদের জীবনের সমস্ত কিছু তিনি রহমতে পরিবর্তন করতে পারেন এবং করবেন।

    Version for printing    
    Downloads    
    Contact us    
    Web-master